‘আইসিসির সভাপতি হতে সৌরভের পাকিস্তানের সমর্থন লাগবে না’

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: 07/06/2020 02:05:30 pm

ক্রিকেটের সর্বোচ্চ নিয়ন্ত্রক সংস্থা আইসিসির বর্তমান সভাপতি শশাঙ্ক মনোহরের মেয়াদ আর বেশিদিন নেই। তাঁর পরিবর্তে কে বসবে আইসিসির মসনদে? এমন প্রশ্নের উত্তরে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের বর্তমান সভাপতি সৌরভ গাঙ্গুলির নাম এসেছিল। এমনকি দক্ষিণ আফ্রিকা ক্রিকেট বোর্ডের পরিচালক গ্রায়েম স্মিথও সমর্থন দিয়েছেন তাতে।

এবার পাকিস্তানের লেগ স্পিনার দানিশ কানেরিয়াও বলছেন একই কথা। এই লেগ স্পিনার মনে করেন, আইসিসির সভাপতি পদের জন্য সৌরভের চেয়ে যোগ্য আর কেউ নেই। সৌরভ নিজেকে এমন অবস্থানে নিয়ে গেছেন যে, আইসিসির সভাপতি হতে পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডের সমর্থনও লাগবে না তাঁর।

আর সৌরভ যদি আইসিসির সভাপতি পদে নির্বাচিত হয়, তবে নিজেকে স্পট ফিক্সিংয়ের কালিমা থেকে মুক্ত করতে আবেদন করবেন পাকিস্তানের লেগ স্পিনার দানিশ কানেরিয়া। ইন্ডিয়া টিভিতে দেওয়া এক সাক্ষাতকারে এমন কথাই বললেন পাকিস্তানের হয়ে টেস্টে স্পিনার হিসেবে সর্বোচ্চ ২৬১ উইকেট নেওয়া কানেরিয়া। এই লেগি মনে করেন, সৌরভ ক্ষমতায় আসলে আইসিসি থেকে আরও বেশি সহায়তা পাবেন তিনি।

২০১২ সালে এসেক্সের হয়ে কাউন্টি ম্যাচ খেলার সময় তাঁর বিরুদ্ধে স্পট ফিক্সিংয়ের অভিযোগ তোলা হয়। শুরুতে স্বীকার না করলেও ২০১৮ সালে এসে সব অভিযোগ মেনে নেন কানেরিয়া। এরপর বিভিন্ন সময় ক্রিকেটে ফিরে কিছু একটা করার জন্য তাকে দেওয়া নিষেধাজ্ঞা তুলে নিতে অনুরোধ জানায় কানেরিয়া। কিন্তু কোনোভাবেই কিছু হয়নি।

সৌরভ গাঙ্গুলি আইসিসির সভাপতি হলে আবার নিজের জন্য আবেদন জানাবে জানিয়ে কানেরিয়া বলেন, ‘আমি তাঁর (সৌরভের) কাছে তখন আবার আবেদন করবো। আমি নিশ্চিত, তখন আইসিসি আমাকে সম্ভাব্য সব ধরনের সহযোগিতা করবে।’

সৌরভই আগামী আইসিসির সভাপতি পদ পাওয়ার যোগ্য দাবিদার বলে কানেরিয়া নিজের কথার সঙ্গে আরও যোগ করেন, ‘সৌরভ গাঙ্গুলি অসাধারণ ক্রিকেটার ছিলেন। সে ভালো-মন্দের পার্থক্য ভালো বুঝে। আইসিসির প্রেসিডেন্ট পদের জন্য তাঁর চেয়ে ভালো ক্যান্ডিডেট আর কেউ নেই।’

আইসিসির সভাপতি হওয়ার জন্য ভোটে যদি সৌরভকে পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড যদি ভেটোও দেয় তাতেও কোনো সমস্যা হবেন না বলে মনে করেন কানেরিয়া। এই পাকিস্তানি ক্রিকেটার বলেন, ‘সৌরভ গাঙ্গুলি নিজের পক্ষে শক্ত অবস্থান দাঁড় করিয়েছেন। আমি মনে করি না, তাঁর পাকিস্তানের সাহায্য বা সমর্থন লাগবে।’