Monday, September 23, 2019 10:21 pm
Spread the love

পার্বত্য জেলা রাঙ্গামাটির বাঘাইছড়ি উপজেলা সাজেক ইউনিয়নের কংলাক, মাচালং ও বাঘাইহাট কেন্দ্র থেকে নির্বাচন শেষে ফেরার পথে সন্ত্রাসীদের গুলিতে নিহতের সংখ্যা বেড়ে সাত জনে দাড়িঁয়েছে । এসময় চারজন পুলিশসহ অন্তত ১৬ জন আহত হয়েছেন বলে খবর পাওয়া গেছে। নিহত ও আহতরা নির্বাচনের দায়িত্ব পালন শেষে ফিরছিলেন।সোমবার (১৮ মার্চ) সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে উপজেলার নয়কিলো এলাকায় এ ঘটনা ঘটেছে।

নিহতরা হলেন, ভিডিপি সদস্য মো. আল আমিন (১৭), ভিডিপির ইউনিয়ন লিডার বিলকিস (৪০), ভিডিপি দলনেতা মিহির কান্তি দত্ত (৪০), ভিডিপি জাহানারা বেগম, শিক্ষক মো. আমির হোসেন (৪০), পথচারী মিন্টু চাকমা (২৭) ও দাখিল মাদ্রাসার শিক্ষক তৈয়ব আলি।আহতদের মধ্যে ১৪জনকে বিজিবি’র হেলিকপ্টারের মাধ্যমে চট্টগ্রাম মেডিকেল হাসপাতালে নেওয়া হবে। আহত অন্য দুইজন বাঘাইছড়ি স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন।পুলিশ জানিয়েছে, উপজেলার সাজেক ইউনিয়নের কংলাক, মাচালং ও বাঘাইহাট কেন্দ্র থেকে নির্বাচন কর্মকর্তা ও নিরাপত্তা কর্মকর্তারা ভোট গ্রহণ শেষে উপজেলা সদরে ফেরার পথে দীঘিনালা-বাঘাইছড়ি সড়কের নয়কিলো এলাকায় পৌঁছলে পাশের পাহাড় থেকে তাদের গাড়ি লক্ষ্য করে গুলি করা হয়। এতে ছয়জনের মৃত্যু হয়। আহত হন অন্তত ১৬ জন।কেন্দ্র থেকে ফেরার পথে ওই চাঁদের গাড়িতে নির্বাচনি কর্মকর্তা ও নিরাপত্তা বাহিনীর ২০ থেকে ২২ জন সদস্য ছিলেন। পাশের একটি উঁচু পাহাড় থেকে অস্ত্র নিয়ে গাড়িতে হামলা চালালে গাড়িতে থাকা সবাই গুলিবিদ্ধ হয়। পরে নিরাপত্তা বাহিনী ও স্থানীয়রা এসে আহতদের উদ্ধার করে স্থানীয় স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়।রাঙ্গামাটির অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ) ছুফি উল্লাহ বলেন, রাত আটটা পর্যন্ত আমরা ছয়জন নিহতের খবর পেয়েছি। ভোট গণনা শেষে ফেরার পথে সন্ত্রাসীরা উপজেলার নয় মাইল এলাকায় ঘটনাটি ঘটিয়েছে।উল্লেখ্য, পরবর্তীতে মৃতের সংখ্যা আরও একজন বৃদ্ধি পায়।বাঘাইছড়ি উপজেলা নির্বাহী অফিসার নাদিম সারোয়ার জানিয়েছেন, ‘তিনটি কেন্দ্রে নির্বাচনি দায়িত্ব পালন শেষে তারা সবাই ফিরছিলেন। তখন তাদের উপর নয়কিলো এলাকায় সন্ত্রাসী হামলার এই নৃশংস ঘটনাটি ঘটে।আহতদের উন্নত চিকিৎসার জন্য হেলিকপ্টারযোগে চট্টগ্রামে পাঠানো হচ্ছে বলেও জানান তিনি।


Spread the love

এই নিউজ পোর্টালের কোনো লেখা কিংবা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি

আরও পড়ুন