Sunday, February 17, 2019 11:52 am
Spread the love

বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ শেষের পথে প্রতিবারই এই আসর থেকে বাংলাদেশের নির্বাচকরা খোঁজেন কে এখান থেকে তৈরি হয়ে জাতীয় দলে যেতে পারেন।

এমন একজন ক্রিকেটার ইয়াসির আলী চৌধুরী। যিনি চিটাগং ভাইকিংসের জার্সি গায়ে বিপিএল খেলেছেন।

মুশফিকুর রহিম ও তামিম ইকবাল ছাড়া বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের সেরা পাঁচের তালিকায় কোনো বাংলাদেশী ব্যাটসম্যান নেই।

ছয় নম্বরে আছেন ইয়াসির আলী।

তিনি ১১ ম্যাচে ৩০৭ রান তোলেন। স্ট্রাইক রেট ১২৪.২৯।

যেখানে তিনটি ফিফটি করেন ইয়াসির।

এই পারফরম্যান্স নিয়ে ইয়াসির আলী চৌধুরী বলেন, “আমার প্রত্যাশা ছিল অনেক বড়, আমি সেরা পাঁচে ছিলাম, সেটা এখন হয়নি, তবে যতটুকু করতে পেরেছি আমি খুশি।”

ক্রিকেট, বিপিএলইয়াসির আলী চৌধুরী

পূর্ব পরিসংখ্যান কী বলছে?

ইয়াসির আলী মোট ৪৬টি প্রথম শ্রেণীর ম্যাচ খেলে ৩০১০ রান তুলেছেন।

যেখানে তার স্ট্রাইক রেট ছিল ৫৪.৮৫, আর গড় ৪৯.৩৪।

ঘরোয়া ওয়ানডে ক্রিকেটে ইয়াসির আলীর গড় ৩৩.৩৬।

কীভাবে তিনি মারকুটে হয়ে উঠলেন?

স্ট্রাইক রেটের কথা আসলে বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানদের দিকে সমালোচনার আঙ্গুল ওঠে বারবার।

ইয়াসির আলীর কাছে প্রশ্ন রাখা হয় নিজের স্ট্রাইক রেট নিয়ে তিনি কিভাবে কাজ করেছেন

“ছোটবেলা থেকেই মেরে খেলতে পছন্দ করি। এই ঘরানার ক্রিকেটের অনুশীলনটা চট্টগ্রাম থেকেই।”

চট্টগ্রামের ক্রিকেটার তামিম ইকবালের কথা আলাদাভাবে বলেছেন ইয়াসির।

“ছোটবেলা থেকে তামিম ভাইয়ের খেলা দেখে বড় হয়েছি, তখন থেকেই মেরে খেলার চেষ্টা করতাম, আমি চেষ্টা করতাম যাতে কম বলে বেশি রান করতে পারি।”

তবে নিজেকে টি-টোয়েন্টি ব্যাটসম্যান ভাবতে নারাজ ইয়াসির আলী।

“আমি বাংলাদেশের হয়ে তিনটি ফরম্যাটেই খেলতে চাই, আমার স্বপ্ন টেস্ট ক্রিকেটার হওয়া কিন্তু শুধু টেস্ট ক্রিকেট না। তিন ফরম্যাটেই সার্ভিস দিতে পারলে ভালো লাগবে অবশ্যই।”


Spread the love

এই নিউজ পোর্টালের কোনো লেখা কিংবা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি

আরও পড়ুন