Thursday, January 24, 2019 11:28 am
Spread the love

নতুন মন্ত্রিসভায় স্থান না পাওয়ায় নাখোশ নন সদ্য বিদায়ী বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ। বলেছেন, নতুনদের স্থান দিতে প্রবীণদের সরে যাওয়া এক স্বাভাবিক নিয়ম।

আওয়ামী লীগের সদ্য বিদায়ী মন্ত্রিসভার প্রায় সবা প্রবীণ সদস্য এবার বাদ পড়েছেন। গতকাল শপথ নেওয়া মন্ত্রিসভায় স্থান হয়নি তোফায়েল ছাড়াও আমির হোসেন আমু, মতিয়া চৌধুরী, নুরুল ইসলাম নাহিদ, মোহাম্মদ নাসিম, শাজাহান খানসহ ৩৬ জন।

সোমবার সচিবালয়ে নিজ দপ্তরে তোফায়েলকে বিদায়ী সংবর্ধনা দেন মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা। এ সময় তিনি বলেন, ‘যোগ্য, সৎ ও আদর্শবান ব্যক্তিদের নিয়েই নতুন মন্ত্রিপরিষদ গঠন করা হয়েছে। আমার মনে হয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পরীক্ষিতদের জায়গা দিয়েছেন।’

‘আমরা যারা প্রবীণ তাদের তো নতুনদের জায়গা দিতে হবে। একসময় তো যেতেই হবে।…আমি ৭২ সালে ২৮ বছর বয়সে প্রথম প্রতিমন্ত্রীর মর্যাদায় বঙ্গবন্ধুর রাজনৈতিক সচিব হিসেবে কাজ শুরু করি। এরপর ১৯৭৪ সালে বঙ্গবন্ধু রাষ্ট্রপতি হলে বিশেষ সহকারী ছিলাম। এরপর দীর্ঘ ২১ বছর সচিবালয়ে ঢুকিনি। ১৯৯৫ সালে ১১ জুলাই শেষ সচিবালয়ে ঢুকি। এরপর ১৯৯৬ সালের ২৪ জুন শিল্প ও বাণিজ্যমন্ত্রী হই। তার আগে নির্বাচনকালীন সরকারে শিল্প ও গৃহায়ণমন্ত্রী ছিলাম।’

এ সময় বাণিজ্য সচিব মফিজুল ইসলাম বলেন, ‘তোফায়েল আহমেদ একজন জীবন্ত কিংবদন্তি। নেতা হিসেবে তার বড় সাফল্য বাংলাদেশের স্বাধীনতা। তিনি গত পাঁচ বছর সফলভাবে দায়িত্ব পালন করেছেন। তার এ চলে যাওয়াটা চলে যাওয়া না। তার ভালোবাসা আমরা সব সময় পাব।’


Spread the love

এই নিউজ পোর্টালের কোনো লেখা কিংবা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি

আরও পড়ুন