Thursday, January 24, 2019 10:36 am
Spread the love

বিলুপ্ত হতে যাওয়া মন্ত্রিসভার কোনো সদস্যকে বাদ দেওয়া হয়নি, দায়িত্ব পরিবর্তন হয়েছে মাত্র। বলেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন।

আগামী পাঁচ বছরের জন্য নতুন মন্ত্রিসভা শপথের অপেক্ষায় থাকার সময় সোমবার সচিবালয়ে নিজের সড়ক, পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন কাদের।

আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘সরকার ও দলের আলাদা আলাদা সত্ত্বা রয়েছে। একটা সুগঠিত সরকারের পাশাপাশি একটি সুসংগঠিত দল গঠনে সিনিয়র লিডাররা ভূমিকা রাখবেন। সিনিয়রা কোনো দিক থকে অযোগ্য তা নয়, এটি মন্ত্রিসভা থেকে বাদপড়া নয়। দায়িত্বের পরিবর্তন।’

বেলা সাড়ে তিনটায় শপথ হতে যাওয়া সরকারের ২৭ জন এর আগে কখনো মন্ত্রি ছিলেন না। আর চারজন ২০০৯ থেকে ২০১৩ সাল পর্যন্ত দায়িত্ব পালন করা মন্ত্রিসভার সদস্য।

সবচেয়ে বেশি আলোচনা হচ্ছে বিলুপ্ত হতে যাওয়া মন্ত্রিসভার ৩৬ সদস্যকে নতুন সরকারে না রাখার বিষয়ে। এদের মধ্যে পূর্ণাঙ্গ মন্ত্রী ২৫ জন। নয় জন প্রতিমন্ত্রী এবং দুই জন উপমন্ত্রী। আগের সরকারের কেবল নয় জনকে রাখা হচ্ছে নতুন সরকারের।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বাইরে যারা দুইবার মন্ত্রী হিসেবে শপথ নিয়েছেন, তাদের মধ্যে কেবল ওবায়দুল কাদের থাকছেন নতুন সরকারে।

সড়ক মন্ত্রী বলেন, ‘নতুন পুরাতনদের সমন্বয়ে মন্ত্রিসভা আরও গতিশীল হবে। নতুন সরকারের মন্ত্রিসভা জনগণ ইতিবাচক হিসাবেই নিচ্ছে।’

‘নতুন পুরাতনদের সমন্বয়ে মন্ত্রিসভা আরও গতিশীল হবে। আগে যেসব এলাকায় মন্ত্রী-প্রতিমন্ত্রী ছিলেন না সেসব এলাকাকে প্রাধান্য দিয়েই নতুন মন্ত্রিসভা গঠন করা হয়েছে। নতুন সরকারের মন্ত্রিসভা জনগণ ইতিবাচক হিসাবেই নিচ্ছে। দশের মানুষ এটাকে কীভাবে নিয়েছে সেটাই গুরুত্বপূর্ণ ও দেখার বিষয়।’

নতুন মন্ত্রিসভা নিয়ে দলে কোনো অসন্তোষ আছে কি না- এমন প্রশ্নে কাদের বলেন, ‘পঁচাত্তর পরবর্তী যে কোনো সময়ের চেয়ে আমাদের দলের ঐক্য অনেক বেশি দৃঢ় ও অনেক স্মার্ট। শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দল অনেক বেশি ইউনাইটেড (একাট্টা)। কাজেই এটা নিয়ে দলে কোনো অসন্তোষ নেই। কারণ, দলে যারা আছেন তারা দলের দায়িত্ব পালন করছেন। সময়ে সময়ে দলের মধ্যেও পরিবর্তন আসে। নতুন মুখ আসে, পুরনো মুখ-তাদেরও দায়িত্বের পরিবর্তন হয়। এভাবেই আমাদের দলের অভ্যন্তরীণ গণতন্ত্র চর্চা করা হয়।


Spread the love

এই নিউজ পোর্টালের কোনো লেখা কিংবা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি

আরও পড়ুন