Thursday, January 24, 2019 10:04 am
Spread the love

যশোর : একাদশ সংসদ নির্বাচনে যশোরের ছয়টি আসনে আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকার প্রার্থীরা বিপুল ভোটে নির্বাচিত হয়েছেন। বৃহস্পতিবার নবনির্বাচিত সংসদ সদস্যরা শপথ নিয়েছেন। আগামি সোমবার নতুন মন্ত্রীসভার শপথ অনুষ্ঠিত হবে। আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে রয়েছে নতুন মন্ত্রীসভায় যশোরের কেউ কি থাকছেন। থাকলে কে বা কারা স্থান পাচ্ছেন মন্ত্রীসভায়। চায়ের কাপ থেকে শুরু করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে চলছে নতুন মন্ত্রী নিয়ে নানা আলোচনা।
নতুন মন্ত্রীসভায় যশোরের তিনজন সংসদ সদস্য স্থান পাচ্ছেন বলে গুঞ্জন চলছে। তবে নির্ভরযোগ্য কোন সূত্র নিশ্চিত করতে পারেনি। কর্মী সমর্থকদের প্রত্যাশার শীর্ষে রয়েছেন যশোর-২ (ঝিকরগাছা-চৌগাছা) আসনের সংসদ সদস্য মেজর জেনারেল (অব.) অধ্যাপক ডা.নাসির উদ্দিন, যশোর-৩ (সদর) কাজী নাবিল আহমেদ ও যশোর-৪ আসনের (বাঘারপাড়া-অভয়নগর উপজেলা ও বসুন্দিয়া ইউনিয়ন) আসনের তিনবারের সংসদ সদস্য রণজিত কুমার রায়। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন নতুন মন্ত্রীসভায় যশোরের নতুনমুখ হিসেবে কারো কারো স্থান পাওয়ার বিষয়টি ঘরে বাইরে নানা আলোচনায় রয়েছে। সর্বশেষ মন্ত্রীসভার জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ইসমাত আরা সাদেক নতুন মন্ত্রীসভায় থাকছেন কি না সেটিও পরিস্কার নয়।
যশোরবাসীর দাবি,এবারের নতুন মন্ত্রীসভায় যশোরের গণমানুষের নেতাকে মন্ত্রীত্ব দেওয়া হোক। যিনি যশোরবাসীর অভিভাবক হিসেবে দায়িত্ব পালন করবেন। যশোরের উন্নয়নে মন্ত্রীসভায় ভূমিকা রাখতে পারবেন।
গুঞ্জন রয়েছেন যশোর-২ আসনের সংসদ সদস্য মেজর জেনারেল (অব.) অধ্যাপক ডা. নাসির উদ্দিন স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব পেতে যাচ্ছেন। নতুন সংসদ সদস্য হিসেবে তাকে প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্ব দেওয়া হতে পারে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আস্থাভাজন সাবেক সেনা কর্মকর্তা এই চিকিৎসক মন্ত্রীসভায় স্থান পেলে চমক হিসেবে বিবেচিত হবে।
যশোর-৩ (সদর) আসনের সংসদ সদস্য কাজী নাবিল আহমেদ এবারের মন্ত্রীসভায় স্থান পাচ্ছেন বলে জোরেশোরে আলোচনা চলছে। বিগত মেয়াদেই কাজী নাবিল আহমেদ মন্ত্রীসভায় স্থান পাচ্ছেন এমন গুঞ্জন ছিল। দ্বিতীয় মেয়াদে সংসদ নির্বাচিত হওয়ায় সেই প্রত্যাশার পারদ তুঙ্গে। বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন (বাফুফে) সহ-সভাপতি কাজী নাবিল আহমেদ ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বও পেতে পারেন বলে গুঞ্জন রয়েছে।
যশোর-৪ আসনের তৃতীয়বার নির্বাচিত সংসদ সদস্য রণজিত কুমার রায়কে নতুন মন্ত্রীসভায় প্রতিমন্ত্রী হিসেবে দেখা যেতে পারে, এমন গুঞ্জন ছড়িয়ে পড়েছে নির্বাচনী এলাকা ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে। কর্মী সমর্থকরাও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ঝড় তুলছে।
এছাড়াও যশোর-১ আসনের সংসদ সদস্য শেখ আফিল উদ্দিন ও যশোর-৫ আসনের সংসদ সদস্য স্বপন ভট্টাচার্যকেও মূল্যায়ন করা হতে পারে। তবে শেষ পর্যন্ত মন্ত্রীসভায় কারা স্থান পাচ্ছেন, সেটি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বাইরে কারো জানা নেই। নতুন মন্ত্রীসভার সদস্যদের নাম জানতে হলে সোমবার বিকেল ৩টা পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে। তখন নানা গুঞ্জনের অবসান ঘটবে।
অতীতে তিনটি সংসদে আওয়ামী লীগের নেতৃত্বাধীন মন্ত্রীসভায় যশোরের অনেক নেতাকেই মূল্যায়ন করা হয়েছে। ১৯৯৬ সালে আওয়ামী লীগের নেতৃত্বাধীন মন্ত্রীসভায় দুজন মন্ত্রী ও প্রতিমন্ত্রী ছিলেন। যশোর-৬ (কেশবপুর) আসনে শিক্ষামন্ত্রীর দায়িত্ব পান এএসএইচকে সাদেক ও যশোর-২ আসনে অধ্যাপক রফিকুল ইসলাম বিদ্যুৎ জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করেন। এরপর ২০০৯ সালে আওয়ামী লীগের নেতৃত্বাধীন মন্ত্রীসভায় যশোর-২ আসনের সংসদ সদস্য মোস্তফা ফারুক মোহাম্মদ আইসিটি মন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করেন। ওই সময় হুইপ হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন যশোর-৬ আসনের এমপি শেখ আবদুল ওহাব।
দশম সংসদ নির্বাচনে আবারও আওয়ামী লীগের নেতৃত্বাধীন মন্ত্রীসভায় জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী দায়িত্ব পান যশোর-৬ আসনের সংসদ সদস্য ইসমাত আরা সাদেক। পাঁচ বছর প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করলেও তিনি যশোর জেলার অভিভাবেকর ভূমিকা পালন করতে পারেননি। কেশবপুর কেন্দ্রীক কর্মকান্ড বেশি ছিল। একাদশ সংসদের নতুন মন্ত্রীসভায় যশোরবাসী চমকের প্রত্যাশায় রয়েছে।


Spread the love

এই নিউজ পোর্টালের কোনো লেখা কিংবা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি

আরও পড়ুন