Tuesday, September 24, 2019 2:26 am
Spread the love

নিউজিল্যান্ডের মসজিদে হামলায় জড়িতদের খুঁজছে তুর্কি গোয়েন্দারা। তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়্যিপ এরদোগান বলেছেন, ক্রাইস্টচার্চের ভয়াবহ এ হামলা বিচ্ছিন্ন কোনো ঘটনা নয়, এটি অত্যন্ত সুপরিকল্পিত হামলা।

হামলাকারী দু’বার তুরস্ক এসে ৪৬ দিন অবস্থান করেছিল। তার আক্রমণের শিকার মুসলমানরা হলেও মূল টার্গেট তুরস্ক এবং ইউরোপে বসবাসকারী তুর্কি জনগোষ্ঠী। তুর্কি গোয়েন্দারা এ সন্ত্রাসীর সঙ্গে সম্পৃক্তদের খুঁজে বের করার চেষ্টা করছে। আশা করছি নিউজিল্যান্ড সরকার বিষয়টি গুরুত্বের সঙ্গে তদন্ত করবে।

সোমবার তুরস্কের চ্যানেল ৭ কে দেয়া এক সাক্ষাতকারে প্রেসিডেন্ট এরদোগান এসব কথা বলেন।

ক্রাইস্টচার্চে নামাজরত অবস্থায় মুসল্লিদের ওপর শেতাঙ্গ বন্দুকধারীর চালানো স্মরণকালের ইতিহাসে বর্বরোচিত এ হামলার বিষয়ে পশ্চিমাদের নীরবতার সমালোচনা করে এরদোগান বলেন, এ হামলার ভয়াবহতা মারাত্মক হলেও পশ্চিমা ও ইউরোপ এ বিষয়ে নীরব দর্শকের ভূমিকা পালন করছে। আর পশ্চিমা গণমাধ্যম বিশ্বাসঘাতকতা করছে।

এদিকে নিউজিল্যান্ড সফররত তুরস্কের ভাইস প্রেসিডেন্ট ফুয়াত উকতাই ও পররাষ্ট্রমন্ত্রী মেভলুত চাভুসওগ্লু ক্রাইস্টচার্চের আল নূর ও লিউনড মসজিদ পরিদর্শন করেছেন। এ সময় তারা নিহতদের আত্মার মাগফিরাত ও তাদের পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানান

পরিদর্শন শেষে তুরস্কের ভাইস প্রেসিডেন্ট ফুয়াত উকতাই সাংবাদিকদের বলেন, হামলার তদন্তসহ যাবতীয় বিষয়ে নিউজিল্যান্ডকে তুরস্ক সর্বাত্মক সহযোগিতা করবে। তাছাড়া সামগ্রিক বিষয় নিয়ে দেশটির গভর্নর প্যাটসি রেড্ডির সঙ্গে তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়্যিপ এরদোগান টেলিফোনে কথা বলেছেন।

ফুয়াত উকতাই আরও বলেন, সন্ত্রাসীদের কোনো ধর্মীয় বা রাষ্ট্রীয় পরিচয় নেই। তাদের পরিচয় একটি, সেটি হল তারা মানবতার দুশমন। আজকে যদি এ হামলার সঙ্গে একজন মুসলমানেরও নূন্যতম সম্পৃক্ততা থাকতো, তাহলে গোটা বিশ্বে তোলপাড় সৃষ্টি হতো।


Spread the love

এই নিউজ পোর্টালের কোনো লেখা কিংবা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি

আরও পড়ুন