Monday, October 14, 2019 2:54 pm
Spread the love

শীত, গ্রীষ্ম, বর্ষা— সকাল থেকে রাত পর্যন্ত নানা পদে ডিমের উপরেই ভরসা রাখেন অধিকাংশ মানুষ। আট থেকে আশি— প্রায় সকলেরই পছন্দের তালিকায় রয়েছে ডিম। কিন্তু সম্প্রতি আমেরিকান মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশনের স্বাস্থ্য বিষয়ক পত্রিকা JAMA-এ প্রকাশিত একটি প্রতিবেদনে দাবি করা হয়েছে যে, ডিম আমাদের হৃদযন্ত্রের স্বাস্থ্যের জন্য মোটেই উপকারী নয়! প্রায় ৩০ হাজার (২৯,৬১৫ জন) প্রাপ্তবয়স্কের উপরে সমীক্ষা চালিয়ে এই সিদ্ধান্তে পৌঁছেছেন একদল মার্কিন গবেষক।

শিকাগোর নর্দান ইউনিভার্সিটি স্কুল অব মেডিসিনের অধ্যাপক এবং এই সমীক্ষায় গবেষক দলের অন্যতম সদস্য নুরিনা অ্যালেন সংবাদ সংস্থা ‘রয়টার্স’-কে দেওয়া একটি সাক্ষাত্কারে জানান, ডিমের মাধ্যমে অতিরিক্ত মাত্রায় খাদ্যজ কোলেস্টেরল গ্রহণের ফলে কার্ডিওভাসকুলার রোগে (Cardiovascular disease) আক্রান্তের সংখ্যা এবং এই রোগে মৃত্যুর ঘটনা ক্রমশ বেড়েই চলেছে। তাই তাঁর মতে ডিম খাওয়া এখনই বন্ধ করে দেওয়া উচিত।

জানা গিয়েছে, ১৯৮৫ সাল থেকে ২০১৬ সাল পর্যন্ত দীর্ঘ ৩১ বছর ধরে সংগৃহীত তথ্যের উপর ভিত্তি করে এই গবেষণাটি চালানো হয়েছে। গবেষণার রিপোর্ট অনুযায়ী, এই দীর্ঘ সময়ে মোট ৫৪০০টি কার্ডিওভাসকুলার রোগের (Cardiovascular disease) ঘটনা তাঁদের সামনে এসেছে যার মধ্যে ২০৮৮টি ঘটনা মারাত্মক বিপজ্জনক। এই ৩১ বছরের মধ্যে ৬১৩২টি মৃত্যুর ঘটনাও তাঁদের গবেষণায় উঠে এসেছে।

এই গবেষণা থেকে জানা গিয়েছে, বিশ্বের অধিকাংশ মানুষই নিয়মিত ডিম খান। মার্কিন অধ্যাপক, গবেষক নুরিনা অ্যালেন সতর্ক করে দিয়ে জানিয়েছেন, অতিরিক্ত মাত্রায় ডিম খাওয়ার অভ্যাস আমাদের মৃত্যুও ডেকে আনতে পারে। আর এখানেই বিতর্কের সূত্রপাত! সপ্তাহে ঠিক ক’টা ডিম খাওয়া উচিত আর ক’টা ডিম খেলে বাড়তে পারে হৃদরোগের ঝুঁকি, তা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন বিশ্বের তাবড় পুষ্টিবিদ, গবেষক-সহ হাজার হাজার সাধারণ মানুষ।


Spread the love

এই নিউজ পোর্টালের কোনো লেখা কিংবা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি

আরও পড়ুন