Tuesday, September 24, 2019 2:00 am
Spread the love

যে কোনও নতুন স্মার্টফোন কেনার সময় আমরা প্রায় সকলেই তার ক্যামেরা, ব্যাটারি ব্যাকআপ, ডিসপ্লের মাপ, প্রসেসর আর স্টোরেজ স্পেসিফিকেশান দেখে নিতে ভুলি না। কিন্তু একটা জরুরি বিষয় আমরা দেখে নিতে প্রায় সকলেই ভুলে যাই। অনেকে আবার এ বিষয়ে তেমন কিছুই জানেন না। স্মার্টফোনের SAR ভ্যালুও তার একটি অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ ফিচার যা বেশির ভাগ স্মার্টফোন ব্যবহারকারীই ফোন কেনার আগে দেখেন না।

কী এই SAR ভ্যালু?

যে কোনও স্মার্টফোন থেকেই সারাক্ষণ রেডিও ফ্রিকোয়েন্সি তরঙ্গ (তড়িৎ চুম্বকীয় বিকিরণ) বের হতে থাকে। এই তরঙ্গ নিঃসরণের হার একটি নির্দিষ্ট মাত্রা পেরলেই তা আমাদের শরীরের জন্য মারাত্মক ক্ষতিকর! সহজ ভাবে বলতে গেলে, স্মার্টফোন থেকে তড়িৎ চুম্বকীয় বিকিরণ (রেডিয়েশন লেভেল) মাত্রা ছাড়ালেই তার মারাত্মক ক্ষতিকর প্রভাব পড়ে আমাদের শরীরের উপর। এর থেকে ক্যান্সার পর্যন্ত হতে পারে! স্মার্টফোনের এই ক্ষতিকর বিকিরণ মাপার মাপকাঠি হল এই SAR ভ্যালু।

কী ভাবে জানবেন আপনার স্মার্টফোনের SAR ভ্যালু কত?

প্রত্যেক সংস্থা তার ফোনের ইউজার ম্যানুয়ালে SAR ভ্যালু উল্লেখ করে দেয়। স্মার্টফোনের বাক্সের মধ্যেই থাকে এই ম্যানুয়াল। তবে স্মার্টফোনের ইউজার ম্যানুয়াল নিশ্চয়ই কেউ সঙ্গে করে নিয়ে ঘোরেন না বা দেখে থাকলেও মনে রাখেন না। ইউজার ম্যানুয়াল ছাড়াও নিজের ফোন থেকেই দেখে নিতে পারবেন সেটির ক্ষতিকর বিকিরনের পরিমাণ। কী ভাবে? আসুন জেনে নেওয়া যাক…

১) প্রথমে আনলক করুন নিজের স্মার্টফোন।

২) তার পর ফোনের ডায়ালার খুলুন।

৩) এ বার ডায়াল করুন *#07# আর তার পর কল বাটন প্রেস করুন।

৪) ব্যস, আপনার স্মার্টফোনের ডিসপ্লেতে দেখতে পাবেন সেটির SAR ভ্যালু।

সম্প্রতি একটি তথ্য সামনে এসেছে। কোন স্মার্টফোনের ক্ষতিকর তড়িৎ চুম্বকীয় বিকিরণের পরিমাণ কত, তার একটি তালিকা সামনে এসেছে। আর সেই তালিকায় সবচেয়ে উপরে রয়েছে চিনা স্মার্টফোন প্রস্তুতকারী সংস্থা Xiaomi-র Mi A1 স্মার্টফোনটি। তথ্য অনুযায়ী, Mi A1 স্মার্টফোনটি ব্যবহার করলে প্রতি কিলোগ্রামে ক্ষতিকর তড়িৎ চুম্বকীয় বিকিরণের পরিমাণ ১.৭৪ ওয়াট। কেন্দ্রীয় সরকারের টেলিমন্ত্রক দফতরের নির্দেশিকা অনুযায়ী, এই SAR ভ্যালু প্রতি কিলোগ্রামে ১.৬ ওয়াটের বেশি হওয়া চলবে না।

সুতরাং, উল্লেখিত পদ্ধতিতে জেনে নিন আপনার স্মার্টফোনটির SAR ভ্যালু।


Spread the love

এই নিউজ পোর্টালের কোনো লেখা কিংবা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি

আরও পড়ুন