Monday, August 26, 2019 4:35 am
Spread the love

বিপ্লবী, ভাষাসৈনিক ও রাজনীতিবিদ অনন্ত কুমার মিত্র ১৯১৩ সালের সেপ্টেম্বর মাসে জন্মগ্রহণ করেন ।

পিতা শরৎ চন্দ্র মিত্র ছিলেন দেশ বৎসল ও দানশীল ।

গুণবতী মা, লাবণ্যপ্রভা দেবী ছিলেন  যশোরের বহু জনহিতকরী প্রতিষ্ঠানের  পুরোভাগে ।

অনন্ত কিশোর বয়সে পিতার মাধ্যমে বিখ্যাত বিপ্লবী বিজয় কৃষ্ঞরায় রায় (বড়) এর সাথে পরিচিত হন  এবং তারই আদর্শে তিনি যশোরে শিশু পাঠাগার, ছাত্র সমিতি, এবং শরীর চর্চার আখড়া গড়ে তোলেন ।

কিছু দিনের মধ্যে বিজয় কৃষ্ঞের তিরোধানের পর অনন্ত ও তাঁর সাথীরা  যশোরের তরুণ নেতা কৃষ্ঞবিনোদ রায়ের সংস্পর্শে আসেন ।

১৯২৭ সালে যশোরে যুবসংঘের সম্মেলনে ডঃ ভূপেন্দ্র নাথ দত্ত তরুণদের প্রতি সমাজতন্ত্রের আহবায়ন জানিয়ে যে ভাষণ দেন তা অনন্তদের মনে নতুন চেতনার সঞ্চার করে  ।

অনন্ত অনতিকালের মধ্যে  যুবসংঘের বিশিষ্ট কর্মী  চুড়ামনকাঠি নিবাসী অমরেশ চন্দ্র ঘোষের নেতৃত্বে যশোর- ঝিনাইদহ রেল শ্রমিকদের মধ্যে কাজ শুরু করেন

।যশোর – খুলনায় শ্রমিক সংগঠন গড়ে তোলার কাজে এটাই ছিল প্রথম প্রয়াস ।

১৯৩০ সালে অনন্ত দৌলতপুর কলেজে ভর্তি হয়ে যুবসংঘের বৈপ্লবিক ক্রিয়াকলাপে গুরুত্বপুর্ণ অংশগ্রহণ করেন  এবং সমবয়সী আত্নীয়-স্বজন ও বন্ধুবান্ধবদেরকেও দেশের কাজে উদ্বুদ্ধ করেন ।

১৯৩৫ সালে কলকাতায় আইন পড়ার সময় ইন্দো-জার্মাণ ষড়যন্ত্রে জড়িত থাকার অভিযোগে  বেশ কিছুকাল হাজতবাস করেন ।

১৯৩৭ সালে কেশবপুর অনুষ্ঠিত ছাত্র সম্মেলনে যশোর জেলা ছাত্র ফেডারেশনের সভাপতি নির্বাচিত হন । পরবর্তীকালে যশোর জনরক্ষা সমিতি এবং সোভিয়েত সুহৃদ সমিতির সমাপদিক হন

।১৯৪১ সালে দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ শুরুর পর  অনন্ত কমিউনিষ্ঠ পার্টির সার্বক্ষণিক কর্মী হন ।

১৯৪৭ সালে দেশ বিভাগের পরে তিনি পুর্ব পাকিস্তানের নির্যাতিত রাজনৈতিক কর্মীদের পক্ষ সমর্থন করে  ব্যবহারজীবি হিসেবে উল্লেখযোগ্য ভুমিকা গ্রহণ করেন ।

তারপর ১৯৪৮ সালে ভাষা আন্দোলনের সময়  যশোর শহরে  সরকার বিরোধী এক বিরাট জনসভায় সভাপতিত্ব করার অভিযোগে অনেকের সাথে তাঁকেও  নির্যাতন ও গ্রেফতার করা হয় ।

কিন্তু জেলের বাইরে তাঁদের মুক্তির দাবিতে তীব্র গণ আন্দোলনের ফলে  তাঁরা কয়েক মাসের মধ্যেই মুক্তি লাভ করেন ।

কিন্তু তাঁর উপর নানাবিধ পুলিশী হয়রানি ক্রমে বাড়তেই থাকে ।

ইতিমধ্যে তাঁর স্বাস্থ্যও একেবারে ভেঙ্গে পড়ে ।

অবশেষে ১৯৫০ সালে  তিনি পুর্ব পাকিস্তান ছাড়তে বাধ্য হন ।

কলকাতায় যেয়ে জীবন ধারণের তাগিদে আইন ব্যবসা শুরু করেন ।

সেই সাথে একাধিক সাংস্কৃতিক ক্রিয়াকলাপে যুক্ত হন ।


Spread the love

এই নিউজ পোর্টালের কোনো লেখা কিংবা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি

আরও পড়ুন