Monday, August 26, 2019 4:28 am
Spread the love

এ্যাড.সাইফুজ্জামান শিখর একাধারে একজন রাজনীতিক, সমাজসেবক, ক্রিড়া ও শিক্ষানুরাগী ব্যক্তিত্ব।

জন্ম:

এ্যাড. সাইফুজ্জামান শিখর ১৯৭১ সালের ১ অক্টোবর মাগুরায় জন্মগ্রহণ করেন । মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক, মাগুরার সাবেক সংসদ সদস্য মরহুম আসাদুজ্জামানের চতুর্থ সন্তান সাইফুজ্জামান শিখর।

শিক্ষা:
তিনি মাগুরা সরকারী বয়েজ হাইস্কুল থেকে এসএসসি,সরকারী হোসেন শহীদ সোহরাওয়ার্দী কলেজ থেকে এইচ এসসি পাশ করেন । পরে স্নাতকোত্তর শেষ করে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় থেকে এলএলবি ডিগ্রী অর্জন করেন ।

ছাত্র রাজনীতি:
রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রলীগের সাবেক এই নেতা ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় কমিটির প্রথম যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক হিসাবে তৎকালীন সময়ে বেশ কিছুদিন ছাত্রলীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক হিসাবে সুনামের সাথে দায়িত্ব পালন করেছিলেন ।

প্রধানমন্ত্রীর এপিএস:

বর্তমান মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তাঁর সাংগঠনিক কাজে মুগ্ধ হয়ে প্রধানমন্ত্রীর সহকারী একান্ত সচিব (এপিএস)। হিসেবে নিয়োগ দেন । তিনি এর আগে মহাজোট সরকারের শাসনামলে পাঁচ বছর প্রধানমন্ত্রীর সহকারী একান্ত সচিবের দায়িত্ব পালন করেন। তাছাড়াও শেখ হাসিনাবিরোধী দলের নেত্রী থাকার সময় তার ব্যক্তিগত সহকারী হিসেবে কাজ করেন সাবেক এ ছাত্রলীগ নেতা।

রাজনৈতিক অবদান :

তিনি দলের ক্রান্তিকালে শেখ হাসিনার প্রতিটি নির্দেশ পালনের মাধ্যমে সারা দেশে আওয়ামী লীগসহ দলের অঙ্গসংগঠন সুসংগঠিত করতে আপ্রাণ চেষ্টা করেছেন। সামরিক শাসন আর স্বৈরাচারবিরোধী আন্দোলনে গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারে রাজপথে ছিলেন সাবেক ছাত্রলীগ এই নেতা। সৎ রাজনীতিবিদ হিসেবে সর্ব মহলে পরিচিত।

মাগুরার উন্নয়নের রূপকার:

মাগুরার উন্নয়নের রূপকার হিসেবে ইতিমধ্যে বিভিন্ন মহলের স্বীকৃতি পেয়েছেন এই তরুন রাজনীতিক। সততা ও নিষ্ঠার মাধ্যমে প্রতিষ্ঠিত হয়েছেন। যেকোনো প্রাকৃতিক দুর্যোগে দূর্গতদের জন্য সাহায্যের হাত বাড়ানো এবং অসহায় মানুষের কল্যাণে এগিয়ে আসা একজন উঁচুমাপের সমাজসেবক ও প্রধানমন্ত্রীর  সহকারী একান্ত সচিব হিসেবেও ব্যাপক সুনাম অর্জন করেছেন। অসম্ভব মেধা, আত্মবিশ্বাস ও সময়োপযোগী কর্মোদ্যগের মাধ্যমে বহু আগেই সমাজে প্রতিষ্ঠিত হয়েছেন তিনি।
অ্যাডভোকেট সাইফুজ্জামান শিখর দীর্ঘদিন ধরে  মাগুরার টেকসই উন্নয়নে অবদান রেখেছেন । এ ছাড়াও মাগুরাবাসীর সুখে দুঃখে থেকেছেন ছায়ার মতন। ক্লিন ইমেজের অধিকারী সাইফুজ্জামান শিখর কর্মীদের নিজেদের মতো করে কাজের সুযোগ দেন। তাদের দেখে-শুনে রাখেন। কর্মীদের মূল্যায়ন করেন। বর্তমান মাগুরা যে উন্নয়নের রোল মডেল তার পিছনে ভূমিকা রয়েছে সাবেক এই ছাত্রনেতার।


Spread the love

এই নিউজ পোর্টালের কোনো লেখা কিংবা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি

আরও পড়ুন