Wednesday, August 21, 2019 5:31 pm
Spread the love

মো: কবিরুল হক নড়াইল-১ আসনের সংসদ সদস্য। তিনি নবম ও দশম জাতীয় সংসদে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ থেকে সংসদ সদস্য হিসেবে নির্বাচিত হন।

জন্ম :
মোঃ কবিরুল হক ১৯৭১ সালের ৩০ জুন নড়াইল জেলার মামার গ্রাম লোহাগড়া থানার কুংড়িতে।

পিতার নাম মরহুম একলাছ উদ্দিন আহম্মদ এবং মাতা মোছাম্মৎ বাকেরা বেগম।

পিতা একজন বিশিষ্ট আওয়ামী লীগ নেতা ছিলেন।

তিনি ১৯৭৩ সালে অনুষ্ঠিত প্রথম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সংসদ সদস্য হিসেবে নির্বাচিত হয়েছিলেন।

১৯৮৫ সালের ১১ জুন তারিখে ঘৃনিত শত্রু কর্তৃক তিনি এবং তাঁর একপুত্র জনাব এহসানুলু হক চুন্নু নির্মমভাবে শহীদ হন।

শিক্ষাজীবন:

মোঃ কবিরুল হক রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীন নড়াইলের কালিয়া শহীদ আঃ সালাম মহাবিদ্যালয় থেকে স্নাতক ডিগ্রি অর্জন করেন।

কর্মজীবন:

পেশায় কৃষি কাজ ও ব্যবসায়ী কবিরুল হক রাজনীতির সঙ্গে সক্রিয় ভাবে যুক্ত আছেন।

রাজনীতি:

ছাত্রজীবনে জনাব কবিরুল হক ছাত্রলীগের সাথে সক্রিয় ছিলেন।তিনি বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের রাজনীতির সঙ্গে যুক্ত।

তিনি ২০০৩ সাল হতে অদ্যাবধি কালিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ।

এছাড়াও তিনি ১৯৯৯ সাল হতে জাতীয় সংসদ নির্বাচিত হওয়ার পূর্ব পর্যন্ত কালিয়া পৌরসভার চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন এবং বৃক্ষ রোপন অভিযানে শ্রেষ্ঠ পৌর মেয়র হিসেবে জাতীয় পর্যায়ে প্রথম পুরস্কার লাভ করেন।

তিনি ২০০৮ সালের ২৯ ডিসেম্বর ৯ম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী হিসেবে জাতীয় সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন।

নবম সংসদে তিনি যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির সদস্য হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন।

সামাজীক কর্মকাণ্ড:
সংসদ সদস্য হিসেবে তাঁর বলিষ্ঠ উদ্যোগে মধুমতি নদীন উপর চাপাইলঘাটে ৫৮.৬০ কোটি টাকা ব্যয়ে সেতু নির্মাণ, চিত্রানদীর উপর রঘুনাথপুর পয়েন্টে সেতুনির্মাণ, মহিষখোলা হতে চাতুরিয়া দীর্ঘ ৮ কিঃমিঃ মাটির রাস্তা নির্মান কাজ সম্পন্ন হয়েছে বা কাজ চলছে।

এছাড়া এলাকায় অনেক স্কুল, কলেজ, মাদ্রাসার ব্যাপক সংস্কার কাজে তিনি বিশেষ ভূমিকা রেখেছেন।

তিনি শহীদ এখলাছ উদ্দিীন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সভাপতি এবং শহীদ টুনু সংঘের আজীবন সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন ।

তিনি বাংলা ও ইংরেজী বলতে , লিখতে ও পড়তে পারেন।

পারিবারিক:

জনাব কবিরুল হকের সহধর্মিনী নাম মিসেস চন্দনা হক।

তিনি একজন শিক্ষিকা। এ পরিবারের কন্যা মাহিশা হক ও পুত্র সৌহার্দ্য হক এখনও শিশু।

তাঁর লক্ষ্য:

মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় সমৃদ্ধ হয়ে সুখী সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়াই তাঁর রাজনৈতিক অঙ্গীকার।

দেশের সঠিক ইতিহাস জেনে, দেশের প্রতি মমত্ববোধ নিয়ে এবং বিগত প্রজন্ম যা করতে পারেনি তা তরুণ-তরুণীদের করে যাবার জন্য কবিরুল হক মুক্তি উপদেশ দেন।

সফর:

সরকারি সফরে জনাব কবিরুল হক ভিয়েৎনাম, চীন ও সিঙ্গাপুর সফর করেছেন।

সময় পেলে জনসেবাকেই গুরুত্ব দেন জনাব কবিরুল হক মুক্তি।

সখ:

সমগ্র পৃথিবী ভ্রমণ ও গান শোনা তাঁর সখ।


Spread the love

এই নিউজ পোর্টালের কোনো লেখা কিংবা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি

আরও পড়ুন